পুদিনার 'চা' এর ঔষধি গুনাগুন

পুদিনার 'চা' এর ঔষধি গুনাগুন
পুদিনা পাতা আমরা কম বেশি সবাই কোনো না কোনো সময় ব্যবহার করেছি। গুল্মজাতীয় এই গাছের সুগন্ধ যুক্ত পাতা আপনি হয়ত রান্নায় কিংবা পানীয় প্রস্তুত করতে ব্যবহার করেছেন। এই পুদিনা পাতা কেবল সুস্বাদু ই নয়,এর রয়েছে ঔষধি গুনাগুনও।

১. পুদিনা পাতায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টসের গুনাগুন বিদ্যমান আছে, যা হজমের সমস্যা , পেটের ব্যথা কিংবা পেটের অন্যান্য সমস্যার সমাধানে খুবই কার্যকরী। এসকল রোগের সমাধানে আপনি ৬/৭ টি পুদিনা পাতা গরম পানিতে ফুটিয়ে মধু মিশিয়ে চা তৈরি করে তা খাবার পর পান করতে পারেন।

২. পুদিনা পাতার রস এবং লেবুর রস একত্রে মিশিয়ে সরবত বানিয়ে পান করলে তা ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে।

৩. মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর করতে তাজা পুদিনা পাতা পিষে মুখে লাগিয়ে তা কিছুক্ষন পর ধুয়ে ফেলুন।

৪. পুদিনা পাতায় রিলেল অ্যালকোহল বিদ্যাযমান রয়েছে। যা ফাইটোনিউরিয়েন্টসের একটি উপাদান। এটি মানবদেহে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধিতে বাঁধা প্রদান করে।

৫. পেটে গ্যস হলে ২ চা চামচ পুদিনা পাতার রস এবং ১০ ফোটা কাগজি লেবুর রস হাল্কা গরম পানিতে মিশিয়ে দিনে ২/৩ বার পান করলে গ্যস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৬. পুদিনা পাতা এন্টিবায়টিক হিসেবে কাজ করে এবং ত্বকের সংক্রমণ রোধ করে, এছাড়া পুদিনা পাতা বেটে মুখের ব্রনের দাগে লাগিয়ে ২-৩ ঘন্টা রেখে ধুয়ে ফেল্লে দাগ আস্তে আস্তে মিলিয়ে যায়।

৭. পুদিনায় রোজমেরিক এসিড নামের এক ধরনের উপাদান রয়েছে। যা অ্যাজমা প্রতিরোধে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি প্রোস্টসাইক্লিন তৈরীতে বাধা দেয়, যার ফলে শ্বাস্নালী সুস্থ থাকে।

৮. পুদিনা পাতার রস মাথার উকুন রোধে সাহায্য করে।

৯. অনেকের রোদে বের হলে ত্বকে জালা ভাব হয়, সেক্ষেত্রে পুদিনা পাতা এবং অ্যালোভেরার রস একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে প্রলেপ দিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিলে জ্বালা ভাব থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

১০. পুদিনা পাতা পানির সাথে মিশিয়ে কুলি করলে তা অনেকটা natural mouth wash এর মত কাজ করে, এতে মিন্ট থাকায় তা মুখের দুর্গন্ধ দূর করে। পুদিনাপাতার পানি ছিটালে ইঁদূর,মশা ও পোকামাকড়ের উপদ্রব কমে যায়।

No comments:

Post a Comment