জলপাই এর বিভিন্ন পুষ্টি ও স্বাস্থ্য গুনাগুন

জলপাই এর বিভিন্ন পুষ্টি ও স্বাস্থ্য গুনাগুন
জলপাই ভিটামিন সমৃদ্ধ একটি শীতকালীন ফল। টক স্বাদের এই ফলটি আমাদের দেশে আচার হিসেবেই বেশি খাওয়া হয় । জলপাই এর অনেক ধরনের স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টি গুনাগুণ। চলুন জেনে নিই আপনার প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় জলপাই রাখার কারণ সমূহ।

১। ত্বক ও চুলের যত্নে
জলপাইয়ের তেলে যে ফ্যাটি এসিড ও এ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে তা ত্বক ও চুলের যত্নে খুবই কার্যকরী। এই তেল চুলের গোড়া শক্ত রাখতে সাহায্য করে ফলে মাথায় চুল পড়া কমে যায়। জলপাইয়ের তেলে ভিটামিন ই থাকে। তাই নিয়মিত ত্বকে এই তেল মেখে মসৃনতা বজায় রাখতে পারেন।
২। চোখ ভালো রাখতে
জলপাইয়ে প্রচুর ভিটামিন এ পাওয়া যায়। চোখে বিভিন্ন জীবাণুর আক্রমণ, চোখ ওঠা, চোখের পাতায় ইনফেকশনজনিত সমস্যা দূর করতে জলপাই অনেক ভুমিকা রাখে। তাই যাদের চোখে সমস্যা আছে তারা এটিকে ঔষধ মনে করে খেতে পারেন।
৩। শরীরে আয়রনের ঘাটতি মিটাতে
আয়রনের অভাব হলে শরীরে অক্সিজেনের অভাব দেখা দেয়। ফলে শরীর দূর্বল হয়ে পড়ে। জলপাই আয়রনের একটি বড় উৎস। যাদের শরীরে আয়রনের ঘাটতি আছে তারা নিয়মিত জলপাই খাওয়ার মাধ্যমে তাদের শরীরে আয়রনের ঘাটতি মেটাতে পারেন।
৪। শরীরের জ্বালা-পোড়া ও ব্যথা প্রশমনে: শরীরের ব্যথা ও জ্বালা-পোড়া দুর করতে জলপাই ভুমিকা রাখতে পারে। যাদের আর্থ্রাইটিস বা বাতের সমস্যা রয়েছে তারা নিয়মিত জলপাই খেয়ে উপকার পেতে পারেন।
৫। হজম প্রক্রিয়া তরান্বিত করতে: জলপাই খাবার পরিপাকক্রিয়ায়ও সাহায্য করে । এছাড়া গ্যাস্ট্রিক ও আলসার প্রতিরোধেও এটি খুবই কার্যকরী। জলপাইয়ে প্রচুর পরিমানে ফাইবার থাকে যা বিপাক ক্রিয়ায় সাহায্য করে। তাই যাদের খাবার হজমে সমস্যা আছে তারা বেশী বেশী জলপাই খেতে পারেন।
৬। হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে: মানুষের রক্তে কোলেস্টোরেলের মাত্রা বেড়ে গেলে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বেড়ে যায়। জলপাইয়ে থাকা এ্যান্টি অক্সিডেন্ট রক্তের কোলেস্টেরেলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া জলপাইয়ের তেল হার্ট অ্যাটাক ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সহায়ক। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় জলপাই রাখতে পারেন।
৭। ক্যান্সার প্রতিরোধে: জলপাইয়ে বিভিন্ন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান বিদ্যমান যা দেহে বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার যেমন- ব্রেস্ট ক্যান্সার, কোলন ক্যান্সার ইত্যাদি প্রতিরোধে কাজ করতে পারে। এছাড়া এতে থাকা ভিটামিন ই দেহে অস্বাভাবিক ক্যান্সার কোষ গঠন ও বৃদ্ধিতে বাধা প্রদান করে। যার ফলে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়। তাই শরীরকে ক্যান্সারের ঝুঁকিমুক্ত রাখতে নিয়মিত জলপাই খেতে পারেন।
জলপাইয়ের বিভিন্ন স্বাস্থ্য ও পুষ্টিগুণ রয়েছে। জলপাই তেলে অনেক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান থাকে, যেগুলো আমাদের শরীরকে সুস্থ এবং সুন্দর রাখতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত জলপাই খাওয়ার মাধ্যমে এই সব অসাধারণ উপকারিতা সহজেই পেতে পারেন।

No comments:

Post a Comment